Wednesday, May 13, 2020

সবিনয়ে জানতে চাই

গত ২৯ শে এপ্রিল কুড়িগ্রামে ৩৪ টি পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী উপহার দেওয়ার সময়ই আমরা ঠিক করেছিলাম আমাদের করোনা গিফট ফান্ড যদি বৃদ্ধি পায় আমরা আবারো কুড়িগ্রামেই অসহায় পরিবারের পাশে থাকার চেষ্টা করবো। তখন উপহারের ব্যাগ দেখে একজন জানতে চেয়েছিলেন এতে নারিকেল তেলও আছে কিনা, আক্ষেপ করে বলেছিলেন কতদিন মাথায় তেল দেইনা ভুলেই গেছি। 

আশা করছি আগামী ১৬ই মে আগের চেয়েও দ্বিগুণ সংখক পরিবারের ৬/৭ দিনের খাদ্য সামগ্রী উপহার দিতে পারবো, অন্যান্য উপহারের সাথে নারিকেল তেল থাকবে ইনশাল্লাহ।

আগের বারের মতো এবার আমাদের বেশ কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক উপহার সামগ্রী কি কি দিবো সেটার তালিকা তৈরির সময় একজন মুরুব্বী জানালেন ৬০/৭০ টাকার খাবার কম দিয়ে প্রত্যেক প্যাকেটে একটা করে ব্লাউজ পিস দেয়া গেলে তাহলে সেটা তাঁরা প্রায় ১ বছর ব্যবহার করতে পারবেন। ভেবে দেখুন কত দরিদ্র অঞ্চল এখনো বাংলাদেশে রয়েছে যাদের মাথায় তেল কবে দিয়েছেন মনে করতে পারেন না, ১ পিস ব্লাউজ ও সবার কেনার সামর্থ্য নেই। কারন আমরা যেখানে উপহার দিচ্ছি সেখানে ১৫/২০ টাকা দিয়ে বাজার করলেই নাকি ৫ জনের পরিবারের একদিনের দুই বেলা খাবার জুটে যায়। এবং এই টাকাটাও সবার হাতে সারা বছর থাকেনা। 



আমাদের একজন সম্মানিত ডোনার প্রশ্ন করেছিলেন একই জায়গায় কেন আবারো উপহার দিচ্ছি, আমরা উনাকে উপরের দুটি কথা জানালাম(তেল ও ব্লাউজ পিসের এমন অভাব বাংলাদেশেই হয়তো বিরল)। উনি শুনে সাথে সাথেই আরও ৪ টি পরিবারের উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার টাকা দিয়ে দিলেন। 

সম্মানিত ডোনার ও পাঠকদের কাছেও সবিনয়ে জানতে চাই বাংলাদেশের এমনএকটা অঞ্চলে আবারো উপহার সামগ্রী দেওয়া কি ভুল হচ্ছে আমাদের? একই জায়গায় আবারো দিচ্ছি বলে প্রশ্ন টা আপনাদের করছি। 
 Please Help us to Help others in their Critical Times